আ’লীগ সমর্থিত প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিক, সম্পাদক ফরিদা।।

0
271

Sharing is caring!

জাতীয় প্রেস ক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে (২০১৭-১৮) আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাংবাদিক প্যানেল শফিক-ফরিদা পরিষদ নিরঙ্কুশ বিজয় লাভ করেছে। এ প্যানেল থেকে সভাপতি পদে ৬৭২ ভোট পেয়ে মুহম্মদ শফিকুর রহমান সভাপতি এবং ৪৩৯ ভোট পেয়ে ফরিদা ইয়াসমিন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

- Advertisement -

অন্যদিকে বিএনপি ফোরাম থেকে একজন যুগ্ম সম্পাদক ও কার্যনির্বাহী সদস্য পদে একজন এবং স্বতন্ত্র ফোরাম থেকে একজন সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেস ক্লাবের দ্বিবার্ষিক (২০১৭-১৮) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হয়। ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যায় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান তথ্য প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার এ ফল ঘোষণা করেন।

সভাপতি পদে নির্বাচিত শফিকুর রহমানের প্রতিদ্বন্দ্বি অপর দুই প্রার্থী বিএনপি ফোরামের এম এ আজিজ (মূল অংশ) ২৭৯ ভোট ও খোন্দকার মনিরুল আলম ১২০ ভোট পেয়েছেন।

অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত ফরিদা ইয়াসমিনের অপর দুই প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি ফোরামের কাদের গনি চৌধুরী ৩৫০ ভোট ও কামরুল ইসলাম চৌধুরী ২৮২ ভোট পেয়েছেন।

আওয়ামী লীগ ফোরাম থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাইফুল আলম।তিনি পেয়েছেন সর্বোচ্চ ৮০৭ ভোট। তার অপর দুই প্রতিদ্বন্দ্বি নূরুল আমিন রোকন ১৮৩ ভোট ও মুহম্মদ রুহুল কুদ্দুস ৬২ ভোট পেয়েছেন। সহ সভাপতি পদে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ ফোরামের আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া পেয়েছেন ৫৭০ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বি অপর তিনজন যথাক্রমে সদরুল হাসান ২৩৯ ভোট, আমিরুল ইসলাম কাগজী ১৫৬ ভোট ও মো. মোকাররম হোসেন ৪৪ ভোট পেয়েছেন।

দুই জন যুগ্ম-সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ ফোরামের শাহেদ চৌধুরী (৬২৭) এবং বিএনপি ফোরামের ইলিয়াস খান (৪৫২) নির্বাচিত হয়েছেন। এ পদে অপর প্রার্থীরা যথাক্রমে মো. আশরাফ আলী ৪৩৯ ভোট, নাজমুল আহসান ১৪৯ ভোট, জহিরুল হক রানা ৭৭ ভোট এবং আবদুল গাফফার মাহমুদ ৭০ ভোট পেয়েছেন।

৪৭৮ ভোট পেয়ে কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ ফোরামের কার্তিক চ্যাটার্জি। তার অপর দুই প্রতিদ্বন্দ্বি কাজী রওনাক হোসেন ৩৯২ ভোট ও সরদার ফরিদ আহমদ ১৯৮ ভোট পেয়েছেন।

এছাড়া কার্যনির্বাহী ১০টি পদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৫৭৪ ভোট পেয়ে প্রথম হয়েছেন আওয়ামী লীগ ফোরামের শ্যামল দত্ত। কার্যনির্বাহী পদে নির্বাচিত বাকীরা হলেন যথাক্রমে-কুদ্দুস আফ্রাদ (৫৩৫ ভোট), মইনুল আলম (স্বতন্ত্র-৫১১ ভোট), রেজোয়ানুল হক রাজা (৪৮৮ ভোট), মোল্লা জালাল (৪৫৯ ভোট), শামসুদ্দিন আহমেদ চারু (৪৫২ ভোট), হাসান হাফিজ (৪২৩ ভোট,বিএনপি ফোরাম), শাহনাজ বেগম (৩৯৩ ভোট), কল্যাণ সাহা (৩৭৮ ভোট) এবং হাসান আরেফিন (৩৬০ ভোট)।

সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির দ্বি-বার্ষিক এ নির্বাচনে সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ ১৭টি পদে ৫২জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ফোরাম এককভাবে এবং বিএনপি-জামায়াত ফোরাম থেকে একটি পূর্ণাঙ্গ প্যানেলসহ আরো দুটি আংশিক প্যানেলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

নির্বাচনে মোট এক হাজার ২১৮ জন ভোটারের মধ্যে এক হাজার ৮৯ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এরমধ্যে একটি ভোট বাতিল হয়।

পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন তথ্য প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার।অন্য সদস্যরা হলেন- মো. মোস্তফা-ই-জামিল, জাফর ইকবাল, শাহ আলমগীর ও মো. নাসির উদ্দিন।

সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত টানা ভোট গ্রহণ চলে। ভোটগ্রহণ শেষে কিছুক্ষণ বিরতি দিয়ে ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে ভোট গণনা করা হয়। ভোট গণনা শেষে রাত পৌনে ৮টার দিকে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান মোস্তাফা জব্বার আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

 

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here