Home জাতীয় প্রিয়া সাহার বক্তব্যে পিরোজপুরে নিজ এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ক্ষোভ

প্রিয়া সাহার বক্তব্যে পিরোজপুরে নিজ এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ক্ষোভ

17
0
SHARE

Sharing is caring!

পিরোজপুর প্রতিনিধি : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগের বিরুদ্ধে নিজের এলাকা পিরোজপুরের নাজিরপুরেই ফুসছে জনগণ। দেশের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করায় তাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন তার সম্প্রদায়ের লোকজন। সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগের পেছনে প্রিয়া সাহার ব্যক্তিগত ও পারিবারিক স্বার্থ অর্জনের চেষ্টা রয়েছে বলে মনে করছেন তার নিকট আত্মীয়রা। শনিবার নাজিরপুর ও তার গ্রামের বাড়ি মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নের চরবানিয়ারী ঘুরে এ সব অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রিয়া সাহা ওরফে প্রিয় বালা বিশ্বাস (৫৪) পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নের চরবানিয়ারী গ্রামের মৃত নগেন্দ্র নাথ বিশ্বাসের মেয়ে। তার শ্বশুর বাড়ি যশোর জেলায়। প্রিয় বালার স্বামী মলয় কুমার সাহা দুদকের সদর দফতরে সহকারি উপ-পরিচালক পদে কমর্রত রয়েছেন। তাদের বর্তমান ঠিকানা বাসা-৪৩, এএনজেড এ্যাম্বোসিয়া, ফ্লাট-বি/২, রোড-৪/এ, ধানমন্ডি,ঢাকা। তার দুই মেয়ে প্রজ্ঞা পারমিতা সাহা ও ঐশ্বর্য লক্ষ্মী সাহা যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করছেন।

নাজিরপুর উপজেলার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকজন জানান, চলতি বছরের শুরুতে চরবানিয়ারীতে প্রিয়া সাহার ভাই জগদীশ চন্দ্র বিশ্বাসের একটি অব্যবহৃত ঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। প্রিয়া সাহা তার নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য নাজিরপুর উপজেলার চরবানিয়ারি গ্রামে তার ভাইয়ের জমি নিয়ে বিরোধের জেড় ধরে স্থানীয় বেশ কয়েক জন হিন্দু/মুসলমান সম্প্রদায়ের লোক জনকে হয়রানি করে আসছেন। যে ঘটনাকে মিথ্যা ভাবে সাজিয়ে তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামনে উপস্থাপন করেছেন, তা মিথ্যা ও বানোয়াট। প্রকৃতপক্ষে এ ঘটনায় স্থানীয় কয়েকজন নিরীহ হিন্দু সম্প্রদায়ের লোককে তিনি আসামি করে হয়রানি করছেন।

স্থানীয়রা আরো জানান, প্রিয়া সাহার দুই মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করার কারণে তাদের গ্রিনকার্ড পাইয়ে দেয়া ও নিজেকে ওই দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার আশাই প্রিয়া সাহা ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে এ সব ভিত্তিহীন অভিযোগ করছেন। তারা বলেন, স্থানীয় মুসলামান-হিন্দুদের শান্তিপূর্ণ সহবস্থানকে নষ্ট করার জন্যই উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে তিনি এ সব মিথ্যা কথা বলেছেন।

নাজিরপুর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুমার রায় বলেন, প্রিয়ার ভাই জগদিস বিশ্বাসের একটি পরিত্যক্ত ঘরে পরিকলিপত অগ্নি সংযোগ করে হিন্দু-মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের লোকদের ফাঁসানোর জন্য আসামি করে। সে মামলা চলমান। এবারও ট্রাম্পের কাছে সে পরিকল্পিত অভিযোগ নিয়ে গেছে। তার আসল উদ্দেশ্য মেয়েদেরকে গ্রিন কার্ড পাইয়ে দেয়া। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। তিনি জানান, আজ রবিবার প্রিয়া মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে নাজিরপুরে মানববন্ধন করা হবে।

বর্তমানে পিরোজপুরে অবস্থানরত গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ও পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য, অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে কেউ ধর্মীয় বিবেচনায় নির্যাতনের শিকার হন না। পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মুসলমান-হিন্দুদের শান্তিপূর্ণ সহবস্থান একটি অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। নাজিরপুরের একটি হিন্দু বা অন্য কোন ধর্ম সম্প্রদায়েরর লোক গুম বা নিখোঁজ হয়নি। প্রিয়া বালার বক্তব্য অসৎ উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং সাম্প্রদায়িক সম্পর্ক নষ্টের উষ্কানিমূলক অপচেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নয়।

প্রসঙ্গত: (sharee ‘শারী’) নামে বাংলাদেশের দলিত সম্প্রদায় নিয়ে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক হলেন প্রিয়া সাহা ওরফে প্রিয় বালা বিশ্বাস। তিনি বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্ট্রান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ঢাকা থেকে সদ্য প্রকাশিত ‘দলিত কণ্ঠ’ নামক একটি পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here