আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর হস্তক্ষেপে বদলে যাচ্ছে বরিশালের শেবাচিম হাসপাতাল

0
31
????????????????????????????????????

Sharing is caring!

- Advertisement -

আগামী এক মাসের মধ্যে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ১৫১ জন চুক্তিভিত্তিক জনবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শুক্রবার (৩০ আগস্ট) বিকেলে হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় হাসপাতানের উন্নয়নের জন্য আরো একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে।

সভার সদস্য সচিব ও হাসপাতাল পরিচালক ডাঃ মোঃ বাকির হোসেন বলেন, আগামী ১৫ থেকে ১ মাসের মধ্যে অর্থ মন্ত্রনালয়ের ছাড়পত্র পেলেই স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের অনুমোদিত ১৫১ পরিছন্ন কর্মি ও নিরাপত্তা প্রহরী পদে চুক্তিভিত্তিক জনবল নিয়োগ প্রদান করা হবে। সে ক্ষেত্রে জনবল সরবরাহকারী কোন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সহযোগীতা না নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সরসারি (প্রার্থীর সাথে চুক্তি করে) এ নিয়োগ প্রদান করবে।

সভায় পরিচালকের এই প্রস্তাব মতামতে প্রেক্ষিতে গৃহিত হয়। এছাড়া হাসপাতালের নিরপত্তার জন্য আপাতত ৪০ আনসার সদস্যকে রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এ বিষেয় পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অবঃ) জাহিদ ফারুক শামিম এমপি অচিরেই জেলা আনসার কমান্ডারের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছেন।

সভায় আগামী ডিসেম্বরে মধ্যে হাসপাতালের পূর্ব প্রান্তে নিমাণাধীন ৫ শয্যার মডেলাইজড হাসপাতালটি কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করার নির্দেশ প্রদান করেছেন ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি।

ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে হাসপাতালের পরিচালক, চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফদের নিরলস দায়িত্ব পালনে সন্তোষ প্রকাশ করে সভায় সভাপতি বলেন, হাসপাতালটি আরো অধুনিকতার ছোয়া লাগাতে সবধরনের কাজে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সে ক্ষেত্রে এখানকার চিকিৎসকসহ স্টাফদের দায়িত্বহীনতার অভিযোগ আসলে তাতে কোন ছাড় দেয়া হবে না।

এছাড়া সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য হাসপাতাল এলাকাতেই বর্জ্য ধ্বংস করণ মেশিন বসানের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। এছাড়া হাসপাতালে সামনের থাকা বেসরকারি এ্যাম্বুলেন্স’র লাইসেন্স যাচাই-বাাছাই করার নির্দেশ প্রদান করা হয় গত সভায় ৭ সদস্য নিয়ে গঠিত কমিটিকে।

টানা আড়াই ঘন্টা অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অবঃ) জাহিদ ফারুক শামিম এমপি, বরিশাল-৬ আসনের সংসদ সদস্য ইসরাত জাহান রত্মা, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা রুবিনা আক্তার মিরা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মাইদুল ইসলাম, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জাকারিয়া, জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান, বিএমপি পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান,

অধ্যক্ষ ডাঃ সৈয়দ মাকসুমুল হক, হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাইদুর রহমান রিন্টু, বিএমএ’র জেলা সভাপতি ডাঃ মোঃ ইসতিয়াক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মনিরুজ্জামান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. ওবায়দুল্লাহ সাজু সহ র‌্যাব, জেলা পুলিশ, গনপূর্ত, বরিশাল সিটি কর্পোরেশন’র প্রতিনিধি, হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগীয় প্রদান ও অধ্যাপক, সেবা তত্বাবায়ক এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here