চুল পরার সমস্যা? আজই কিনে আনুন কমলা লেবু।।

0
412
চুল পরার সমস্যা? আজই কিনে আনুন কমলা লেবু।।
চুল পরার সমস্যা? আজই কিনে আনুন কমলা লেবু।।

Sharing is caring!

নিশ্চয় ভাবছেন চুল পরার সঙ্গে কমলালেবুর কী সম্পর্ক, তাই তো? একাধিক প্রাচীন আয়ুর্বেদিক পুঁথি ঘেঁটে দেখা গেছে চুলের স্বাস্থ্য ফেরাতে এই ফলটির কোনও বিকল্প হয় না বলেই চলে।

- Advertisement -

আসলে কমলালেবুতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন- সি, যা নানাভাবে চুলকে সুন্দর এবং মজবুত করে চুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন কমলালেবুকে? পরিমাণ মতো কমলালেবু চটকে নিন। তারপর সেটি সারা চুলে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ভালো করে গোসল করে নিন। এমনটা প্রতিদিন করতে থাকলেই দেখবেন এত প্রতিকূলতার মাঝেও আপনার চুলের সৌন্দর্য প্রতিদিন বাড়তে শুরু করবে।

আসলে কমলা লেবু শুধুমাত্র চুলকে সুন্দর করে না, সেই সঙ্গে নানাবিধ চুল সম্পর্কিত সমস্যার সমাধানেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন…

চুল পরার সমস্যা কমায়

প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন-সি রয়েছে কমলালেবুতে। তাই তো প্রতিদিন চুলে কমলা লেবুর রস লাগালে স্কাল্পে রক্ত চলাচল বেড়ে যায়। ফলে চুল পরার মাত্রা কমতে শুরু করে। শুধু তাই নয় চুলের বৃদ্ধিতেও এই ঘরোয়া পদ্ধতিটি দারুন কাজে আসে।

চুলের আদ্রতা বজায় রাখে

এই গরমে অতিরিক্ত তাপের কারণে অনেকই চুল শুষ্ক হয়ে যেতে শুরু করে। আর এমনটা হলে ধীরে ধীরে চুলের সৌন্দর্যও হ্রাস পায়। সেই সঙ্গে নানা ধরনের রোগও বাসা বাঁধতে শুরু করে স্কাল্পে। তাই তো চুল যাতে কোনও সময় আদ্র হয়ে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখাটা একান্ত প্রয়োজন। এক্ষেত্রেও লেবুর রসকে কাজে লাগাতে পারেন। কারণ লেবুতে ভিটামিন-সি-এর পাশপাশি রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা চুলকে প্রয়োজনীয় আদ্রতা প্রদান করে। কীভাবে এক্ষেত্রে ব্যবহার করতে হবে কমলা লেবুর রসকে? পরিমাণ মতো কমলা লেবুর জুসের সঙ্গে অল্প করে মধু মিশিয়ে ভালো করে চুলে লাগান। কিছু সময় রেখে চুলটা ধুয়ে ফেলুন।

চুলকানি কমায়

কমলা লেবুতে রয়েছে বায়োফ্লেবোনয়েডস এবং ভিটামিন-সি। এই দুটি উপাদান স্কাল্পের প্রদাহ কমায়। ফলে চুলকানি কমতে শুরু করে। পরিমাণ মতো কমলালেবুর খোসার গুঁড়োর সঙ্গে দই মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। তারপর সেই পেস্ট ভালো করে স্কাল্পে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে তারপর চুলটা ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার এই পেস্ট মাথায় লাগালে চুলকানি কমার পাশপাশি খুশকির সমস্যাও দূর হয়।

চুলের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করে

সাইট্রাস ফল হওয়ার কারণে কমলা লেবুতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যাকডিভ এনজাইম, যা চুলের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধির পাশপাশি চুলের উপর একটা আবরণ তৈরি করে দেয়। ফলে পরিবেশ দূষণের কোনও প্রভাবই পরতে পারে না চুলের উপর। অল্প করে কমলা লেবুর রস নিয়ে তুলের গোড়ায় লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন। তারপর চুলটা ধুয়ে ফেলুন।

চুলের বাজে গন্ধ দূর করে

অল্প করে কমলা লেবুর জুস নিয়ে ভাল করে স্কাল্পে লাগিয়ে নিন। কিছু সময় অপেক্ষা করে চুলটা ধুয়ে নিন। এমনটা করলে চুলের বাজে গন্ধ দূর হবে। সেই সঙ্গে চুলের স্বাস্থ্যও ভালো হতে শুরু করবে।

খুশকির প্রকোপ কমায়

প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং জলীয় উপাদান থাকার কারণে কমলা লেবুর রস স্কাল্পে লাগালে শুষ্কতা দূর হয়। ফলে খুশকির প্রকোপও কমতে শুরু করে। এই ধরনের সমস্যা কীভাবে ব্যবহার করতে হবে কমলা লাবুকে? অল্প করে কমলা লেবুর রস নিয়ে স্কাল্পে কম করে ৫-১০ মিনিট মাসাজ করুন। তারপর মাথাটা ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন এমনটা করলেই দেখবেন খুশকি কমতে শুরু করে দিয়েছে।

স্কাল্পকে আদ্র রাখতে সাহায্য করে

একাধিক চুল সম্পর্কিত সমস্যা কেন হয় জানেন? শুষ্ক স্কাল্পের কারণে। তাই তো স্কল্পের যত্ন নেওয়া একান্ত প্রয়োজন। আর এই কাজটি করবেন কীভাবে? খুব সহজ! প্রতিদিন কমলা লেবুর রস স্কাল্পে লাগাতে শুরু করুন। এমনটা করলে স্কল্প শুষ্ক হওয়ার সুযোগই পায় না। আসলে কমলালেবুতে উপস্থিত অ্যাকটিভ এনজাইম স্কাল্পকে আদ্র রাখে, সেই সঙ্গে ইনফেকশন যাতে না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখে।

সূত্র : বোল্ডস্কাই।

(Visited 8 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here