অনলাইন, ই-আর্কাইভসে মলাটবন্দি মুক্তিযুদ্ধ।।

0
318
অনলাইন, ই-আর্কাইভসে মলাটবন্দি মুক্তিযুদ্ধ।।
অনলাইন, ই-আর্কাইভসে মলাটবন্দি মুক্তিযুদ্ধ।।

Sharing is caring!

অনন্য গৌরবের মুক্তিযুদ্ধকে মলাটবন্দি করার পাশাপাশি সংরক্ষণের জন্য বরাবরই বেছে নেওয়া হয়েছে সাইবার দুনিয়া তথা অনলাইন। স্বাধীনতা সংগ্রামের দিনলিপি নিয়ে অনলাইনে রয়েছে হাজারও ওয়েবসাইট। তথ্য এবং ছবিতে অনলাইনেও জীবন্ত হয়ে ওঠে মুক্তিযুদ্ধ।

- Advertisement -

সিডি (কম্প্যাক্ট ডিস্ক), গেমস ও অ্যাপসে মুক্তিযুদ্ধকে ধরে রাখার উদ্যোগ চলমান রয়েছে। তবে শুধু অনলাইনেই থেমে থাকছে না এই প্রক্রিয়া, তৈরি হচ্ছে ই-আর্কাইভসও। উইকিপিডিয়াতেও রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন তথ্য।

এসবের পাশাপাশি একটি মোবাইল ফোন অপারেটর মুক্তিযোদ্ধাদের সেইসব দিনের অভিজ্ঞতা, পরিস্থিতি, যুদ্ধের বর্ণনা শুধু লিখিত বা ছবি ফরম্যাটেই নয়, এবার তা ভিডিও (তাদের মুখে যুদ্ধদিনের কথা) ফরম্যাটেও সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অধিকতর সতর্কতার সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে ধারণ করা সেইসব দিনের কথা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। এটা শেষ হলে শিগগিরই তা অনলাইনে উন্মুক্ত করা হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মুক্তিযোদ্ধা ও বেসিস (বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যারের অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস) সভাপতি মোস্তফা জব্বার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ আমাদের জ্ঞানভাণ্ডার ও তথ্যভাণ্ডার থেকে ডিজিটাল হবে এটা অনিবার্য সত্য। তবে ডিজিটাল আকারে আর্কাইভ করলেও যে সুযোগগুলো থাকা দরকার সেদিকে নজর দেওয়া দরকার।’

মোস্তফা জব্বার আরও বলেন, ‘এমনও তো হতে পারে যে, বিশ্বের অন্য একটি দেশ থেকে  কেউ মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে চাইলো। তাই এমন একটা ব্যবস্থা রাখা দরকার, যেন দূরদেশে বসেও মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট হিসেবে মুক্তিযুদ্ধকে পাওয়া যায়। সেই কনটেন্টে সংগীত যুক্ত হতে পারে, ঘটনার ব্যাকগ্রাউন্ডও তৈরি হতে পারে। এ ধরনের আরও সুযোগ-সুবিধা ও প্রযুক্তি যুক্ত করা গেলে তা আরও অনেকের কাছে পৌঁছাবে।’

ডিজিটাল মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধকে মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট হিসেবে উপস্থাপন করার বিষয়ে জোর দিয়ে বেসিস সভাপতি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমাদের অনেক সুযোগ রয়েছে, কিন্তু আমরা সেগুলো কাজে লাগাচ্ছি না। এগুলো আমাদের কাজে লাগানো দরকার।’

অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধ ই-আর্কাইভস হিসেবে সাজানো হয়েছে http://www.liberationwarbangladesh.org/p/e-archive-71.html সাইটটি। এতে বলা হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অপচেষ্টাকে ব্যর্থ করতে ও এর সঠিক ইতিহাস সর্বস্তরের জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে এবং সঠিক ইতিহাস চর্চার লক্ষ্যে ২০১৪ সালের ৪ মে এই ই-আর্কাইভ যাত্রা শুরু করে।

এটি একাধারে ই-আর্কাইভ, মুক্তিযুদ্ধ পাঠশালা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা ও প্রকাশনা কেন্দ্র। মুক্তিযুদ্ধের বই, দলিল, ডকুমেন্টরি, ভিডিও ফুটেজ, চলচ্চিত্র, অডিও ও ছবির একটি ডিজিটাল লাইব্রেরি তথা ই-আর্কাইভ রয়েছে এতে। ওয়েবসাইটটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

(Visited 3 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here